শনিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২২, ১০:৪৯ পূর্বাহ্ন
Logo
শিরোনাম :
অগ্নিদগ্ধ ছেলেকে দেখতে সীতাকুণ্ডে যেতে পারছেন না বাহুবলের সেফু মিয়া মাধবপুরে বঙ্গমাতা বঙ্গবন্ধু ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্ভোধন মাধবপুরে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস পালিত হবিগঞ্জ পল্লীবিদ্যুৎ লাইন টেকনিশিয়ানের বিরুদ্ধে টাকা আত্মসাতর অভিযোগ মাধবপুরে বৈকুন্ঠপুর চা শ্রমিক পরিবারের মাঝে চাল বিতরণ মাধবপুরে দুই সাংবাদিক কে চাঁদাবাজির মামলা দিয়ে হয়রানির চেষ্টা নেপাল ইন্টারন্যাশনাল আইকনিক এ্যাওয়ার্ড পেলেন ১১ বাংলাদেশী মাধবপুরে ইমারত নির্মাণ শ্রমিক ইউনিয়নের পরিচিতি ও আলোচনা সভা পুলিশের সোর্স কে কুপিয়ে ক্ষত বিক্ষত করেছে মাদক ব্যবসায়ীরা পিএইচ.ডি. ডিগ্রী অর্জন করায় মুহাম্মদ আশরাফুল আলম হেলালকে সংবর্ধনা
নোটিশ ::
দৈনিক হবিগঞ্জের বাণী পত্রিকার সকল প্রতিনিধি ও গ্রাহকদের কে আমাদের ফেইজবুক ফেইজ  এ লাইক দিয়া আমাদের সাথে সংযুক্ত থাকার জন‌্য বিশেষ ভাবে অনুরোধ করা হল। আমাদের ফেইজবুক ফেইজ: https://www.facebook.com/habiganjerbani  অনুরুধ ক্রমে:  সম্পাদক(Online),দৈনিক হবিগঞ্জের বাণী।

নানা নাটকীয়তার পর অবশেষে মাধবপুরের যুবকের লাশ হস্তান্তর করলো বিএসএফ

রিপোর্টার / ৩৪৫ বার
আপডেটের সময় : শুক্রবার, ২৯ মে, ২০২০

মাধবপুর প্রতিনিধি : তিন দিনের নানা নাটকিয়তার পরও অবশেষে ভারতের অভ্যন্তরে অবৈধভাবে অনুপ্রবেশকারী লোকমান মিয়ার লাশ ফেরত দিয়েছে বিএসএফ। শুক্রবার (২৯ মে) সন্ধ্যায় ৩য় দফায় বিজিবি-বিএসএফের পতাকা বৈঠক শেষে গরু চুর সন্দেহে ভারতীয় নাগরিকদের হাতে নিহত এই যুবকের লাশ হস্তান্তর করা হয়। হবিগঞ্জ ব্যাটালিয়ন-৫৫ বিজিবির সহকারী পরিচালক নাসির উদ্দিন চৌধুরী বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন- নিহতের পরিবার ও আমাদের দাবি অনুযায়ী ময়নাতদন্তের কপিসহ যাবতীয় কাজপত্রসহ লাশ হস্তান্তর করায় আমরা লাশ গ্রহণ করেছি। এর আগে গত বুধবার( ২৭ মে)) ও বৃহস্পতিবার (২৮ মে) দুই দফায় বিএসএফে এর সঙ্গে বিজিবি’র পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হলেও বিভিন্ন অজুহাতে সুরতহাল রিপোর্ট, ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন সহ যাবতীয় কাগজপত্র ছাড়া লাশ হস্তান্তর করতে চায় বিএসএফ। ফলে বিজিবি ও নিহতের পরিবার লাশ গ্রহণ করতে অস্বীকৃতি জানায়। উল্লেখ্য যে, গত রবিবার ( ২৪ মে) হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার সীমান্তবর্তী ধর্মঘর ইউনিয়নের মালঞ্চপুর গ্রামের মৃত আব্দুল হাসিমের ছেলে লোকমান মিয়া তার ফুফুর বাড়ি ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের মোহনপুর যাওয়ার জন্য অবৈধভাবে সীমান্ত অতিক্রম করে। এ সময় ভারতের সীমান্তবর্তী গোপালনগর গ্রাম অতিক্রমের সময় স্থানীয় লোকজন তাকে করোনা রোগী ভেবে আটক করে গণপিটুনি দিয়ে বাংলাদেশ সীমান্তের অদূরে একটি জঙ্গলে ফেলে  রেখে যায়।পরে খবর পেয়ে পশ্চিম ত্রিপুরা রাজ্যের সিধাঁই থানা পুলিশ গুরুতর আহত অবস্থায় লোকমান মিয়াকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে তার মৃত্যু হয়। সংবাদটি ভারতীয় বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হলে নিহতের পরিবার জানতে পেড়ে বিজিবি কে অবহিত করে। পরে বুধবার বিকালে ১৯৯৪/৪ এস পিলারের নিকট বাংলাদেশের মোহনপুুুর নামকস্থানে বিজিবি-বিএসএফ এর মধ্যে প্রথম দফায় পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এসময় ভারতীয় পুলিশ ময়নাতদন্ত ও সুরতহাল রিপোর্টসহ যাবতীয় কাগজপত্র ছাড়াই লাশ হস্তান্তর করতে চায়। কিন্তু নিহতের পরিবার ও বাংলাদেশের বিজিবি-পুলিশের প্রতিনিধিরা এসব কাগজপত্র ছাড়া লাশ গ্রহণে অস্বীকৃতি জানায়।পরদিন বৃহস্পতিবার আবারও দুই পক্ষের মধ্যে পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এ সময়ও ভারতীয় পুলিশ যাবতীয় কাগজপত্র ছাড়া লাশ হস্তান্তরের চেষ্টা করে। অবশেষে শুক্রবার বিকেলে তৃতীয় দফায় পতাকা বৈঠকে বসে বিজিবি ও বিএসএফ। এসময় সুরতহাল রিপোর্ট, ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন সহ যাবতীয় কাগজপত্র দেয়ায় লাশ গ্রহণ করে বিজিবি ও নিহতের পরিবার।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
Theme Created By ThemesDealer.Com